দেশ উন্নয়নের মহাসড়কে না, তাহলে কোথায় যাচ্ছে বলে মনে করেন মির্জা ফখরুল ??

বিএন‌পির মহাস‌চিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণ সবাইকে হতাশ করেছে। প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য সবাইকে আশাহত করেছে। জাতি হতাশ। এটি দেশকে নতুন করে সংকটের দিকে নিয়ে যাবে।’

আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ শেষে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় মির্জা ফখরুল এ মন্তব্য করেন। গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে ওই মন্তব্য করেন তিনি।

আগামীকাল শনিবার বিকাল ৩টায় বিএনপির চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানাবে বিএনপি।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘দেশ উন্নয়নের মহাসড়কে না; দুর্নীতির মহাসড়কে উঠেছে।’

মির্জা ফখরুল আরো বলেন, ‘সবাই একটি সমঝোতার যখন আশা করছে, তখন এ ধরণের বক্তব্যে সবাই হতাশ। নির্বাচন ইস্যুতে জাতির উদ্দেশে দেওয়া প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য দেশকে আরেক দফায় ধ্বংসের মুখে ঠেলে দেবে।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর সরকারের টানা দ্বিতীয় মেয়াদের চার বছরের পূর্তি উপলক্ষে জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেন।

৫ জানুয়ারির মতো নির্বাচন জাতি আর মানবে না : নোমান

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান ব‌লে‌ছেন, ৫ জানুয়ারির মতো আরেকটি নির্বাচন হলে বিএনপি সেই নির্বাচন মাথা পেতে নেবে না। সেই নির্বাচন জাতি গ্রহণ করবে না। সেই নির্বাচনের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের মানুষ আওয়াজ তুলবে।

বিএনপির এই নেতা আরো বলেন, ‘আমরা নির্বাচন চাই, নির্বাচন আমরা করব। তবে সেই নির্বাচন নির্ভেজাল হবে। আর সেই নির্বাচনে সহায়ক সরকার প্রতিষ্ঠিত ও জনগণের ভোটাধিকার নিশ্চিত করতে হবে।

আজ শুক্রবার সকা‌লে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক মানববন্ধন কর্মসূচিতে আবদুল্লাহ আল নোমান এ মন্তব্য করেন। ‘বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও জ্যেষ্ঠ ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত ষড়যন্ত্রমূলক ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের’ দাবিতে এ সভার আয়োজন ক‌রে জাতীয় গণতান্ত্রিক মঞ্চ। এতে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি ইসমাইল তালুকদার খোকন।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ‌ব‌লেন, ‘দেশের জনগণের সঙ্গে শেখ হাসিনা সরকারের লড়াই হবে। বাংলাদেশের রাজনীতিতে এমন একটি পরিস্থিতি সৃষ্টি হচ্ছে। আওয়ামী লীগ বন্দুক ও রাইফেল দিয়ে দমিয়ে রাখতে পারবে না। আর হামলা ও মামলা দিয়ে দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে কারাগারে বন্দি করতে পারবে না। আর যদি বন্দি করে তাহলে দেখা যাবে, খালেদা জিয়া ফুলের মালা নিয়ে কারাগার থেকে বের হচ্ছেন আর হাসিনা কারাগারে ঢুকচ্ছেন। এই লিখন তাঁর (প্রধানমন্ত্রী) কপালে!’

রাজনৈতিক নেতাকর্মীরা এখন অসহায় অবস্থায় আছে মন্তব্য করে আবদুল্লাহ আল নোমান আরো বলেন, ‘বর্তমান সরকার গণতন্ত্রের কবর রচনা করতে চায়। কারণ সরকার মনে করে, জনগণ তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারলে তাঁরা ইতিহাসের আঁস্তাকুড়ে নিক্ষিপ্ত হবে। এই কারণে তাঁরা বিএনপিকে ধ্বংস করতে চায়।’

সরকারকে উদ্দেশ করে বিএনপির এই ভাইস চেয়ারম্যান আরো বলেন, ‘দেশে সুশাসন প্রতিষ্ঠার জন্য প্রয়োজনে আমরা আলোচনা করব, প্রয়োজনে আন্দোলনও করব। আর এভাবেই আমরা দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত করব। ওপরে সরকারকে যতই শক্তিশালী মনে হোক। আসলে তারা দুর্বল হয়ে গেছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *