বিএনপির যে প্রস্তাবকে ষড়যন্ত্রমূলক মন্তব্য করলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু

বিএনপির সহায়ক সরকারের প্রস্তাব ষড়যন্ত্রমূলক মন্তব্য করে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, বিএনপি যে প্রস্তাব দিয়েছে তা ষড়যন্ত্রমূলক, নির্বাচন বানচালের অপচেষ্টা। অস্বাভাবিক সরকার আনার কৌশল।

রোববার (১৪ জানুয়ারি) সচিবালয়ে নিজ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

জাতির উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া ভাষণের প্রতিক্রিয়ায় বিএনপির বক্তব্যের প্রেক্ষিতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

ইনু বলেন, বিএনপি সহায়ক সরকারের যে প্রস্তাব দিয়েছে তা ষড়যন্ত্রমূলক, নির্বাচন বানচালের অপচেষ্টা। অস্বাভাবিক সরকার আনার কৌশল। নির্বাচন নিয়ে বিগত ৯ বছরে তারা কোনো সাংবিধানিক প্রস্তাব দিতে পারেনি। কেবলমাত্র আগামী নির্বাচনের জন্য প্রস্তাবনা নিয়ে আলোচনা হতে পারে না।

‘নির্বাচন নিয়ে কোনো সঙ্কট নেই’ উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, নির্বাচন অনুষ্ঠানে সাংবিধানিক, রাজনীতিক বা আইনগত কোনো সঙ্কট নেই। নির্বাচন নিয়ে কোনো অনিশ্চয়তা বা অস্পষ্টতাও নেই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে প্রস্তাব দিয়েছেন তাতে নিবন্ধিত সব দল অংশ নিতে পারবে।

তিনি বলেন, বিএনপির বক্তব্যে চলমান সংকটের কোনো দিক নির্দেশনা নেই। নির্বাচকালীন সরকারের বিষয়ে স্পষ্টতা নেই।

‘গণতন্ত্র বিরোধী শক্তির সন্ত্রাসবাদী কর্মকাণ্ড ও বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাসবাদী কর্মকাণ্ড এবং জঙ্গি-সন্ত্রাসী মহলের সঙ্গে বিএনপির গাঁটছড়া গণতান্ত্রিক রাজনীতির জন্য হুমকি স্বরূপ। এটাই একটা রাজনৈতিক সমস্যা। এই হুমকি মোকাবেলার জন্য একটি জাতীয় ঐক্য দরকার, জাতীয় সিদ্ধান্ত দরকার।’

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াত নির্বাচনের সংকটের উছিলা তৈরি করেছে। সংলাপের নামে সহায়ক সরকারের প্রস্তাবে তাদের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডকে আড়াল এবং হালাল করার অপপ্রয়াসে লিপ্ত রয়েছে তারা। সুতরাং নির্বাচনী গণতন্ত্র, সংলাপ ও সহায়ক সরকারের মুখোশ পড়ে বিএনপি আসলে নির্বাচন বানচালের একটা চক্রান্তের জাল বিস্তার করে চলেছে।’

‘নির্বাচন নিয়ে কোনো অনিশ্চয়তা নেই’ জানিয়ে তিনি বলেন, সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন যথাসময়ে অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনকালীন সরকার কেমন হবে সে বিষয়ে সংবিধানে কোনো অস্পষ্টতা নেই।

উন্নয়নের বিস্তারিত খতিয়ান প্রধানমন্ত্রীর ভাষণে আছে জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, আমি শুধু বলবো, কালো কাঁচের ভেতরে বসে কালো চশমায় উন্নয়ন দেখতে পারছেন না খালেদা জিয়া। কালো কাঁচ সরিয়ে কালো চশমা নামিয়ে বাংলাদেশের দিকে তাকান, গণমাধ্যমের ওপর চোখ রাখুন উন্নয়ন দেখতে পাবেন।

জাসদ সভাপতি ইনু বলেন, বিদেশে সেকেন্ড হোম করার সংস্কৃতি খালেদা জিয়া ও তার ছেলেরা শুরু করেছে। বর্তমান সরকার তা রোধ করার চেষ্টা করছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *