রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে কানাডার প্রধানমন্ত্রী ও সু চি’র ফোনালাপ, অতঃপর কি সিদ্ধান্ত

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা মুসলিম ও অন্যান্য ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর ওপর চলমান সহিংসতায় গভীর উদ্বেগ জানিয়েছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো।

মঙ্গলবার মিয়ানমারের ক্ষমতাসীন দলের নেত্রী ও দেশটির স্টেট কাউন্সেলর অং সান সু চি’কে ফোন দিয়ে তিনি এই উদ্বেগ জানিয়েছেন। এসময় তিনি চলমান পরিস্থিতিতে নৈতিক ও রাজনৈতিক নেতা হিসেবে সু চি’র ভূমিকার ওপর সুনির্দিষ্টভাবে জোর দেন।

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, চলমান এই সহিংসতার অবসান ঘটাতে, বেসামরিক নাগরিকদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে এবং রাখাইন রাজ্যে জাতিসংঘ ও অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর নির্বিঘ্ন চলাচল নিশ্চিত করতে মিয়ানমারের সামরিক ও বেসামরিক নেতাদের জরুরি ভিত্তিতে কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে বলে মনে করেন জাস্টিন ট্রুডো।

খবরে বলা হয়, সু চি’র সঙ্গে ফোনালাপে জাস্টিন ট্রুডো সব ধরনের সংখ্যালঘু জাতিগোষ্ঠীর অধিকার সুরক্ষার প্রয়োজনীয়তা নিয়ে কথা বলেছেন। এসময় তিনি সব নৃগোষ্ঠীকে সম্মান জানানোর মতো একটি শান্তিপূর্ণ ও স্থিতিশীল মিয়ানমার গড়ে তুলতে কানাডা সমর্থন দিতে প্রস্তুত বলেও জানিয়েছেন। ফোনালাপে সু চি মানবিক প্রচেষ্টায় কানাডার অবদানের প্রশংসা করেছেন।

জাস্টিন ট্রুডো তার ব্যক্তিগত টুইটার অ্যাকাউন্টেও সু চি’র সঙ্গে ফোনালাপের কথা জানিয়েছেন। তিনি টুইটারে লিখেছেন, মিয়ানমারে রোহিঙ্গা মুসলিমদের নিয়ে উদ্বেগ জানাতে আজ (বুধবার) আমি অং সান সু চি’র সঙ্গে কথা বলেছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *